নারী-পুরুষের কাছে মনের মতো সঙ্গী-সঙ্গিনীর বৈশিষ্ট্য


গবেষণার জটিল এক বিষয় নারী-পুরুষের স’ম্পর্ক। বহু গবেষণার মাঝে এ স’ম্পর্ককে সবচেয়ে ‘আকাঙ্ক্ষিত’ এবং ‘অ’ত্যাবশ্যক’ শর্ত চিহ্নিত করেছেন বিজ্ঞানীরা। ক্যালিফোর্নিয়ার চ্যাপম্যান ইউনিভার্সিটির গবেষকরা এ বিষয়ে গবেষণার কাজে ২৮ হাজার মানুষকে বেছে নেন। এরা সবাই বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকৃষ্ট। এদের মধ্য থেকেই বেরিয়ে এসেছে মানুষ তার সঙ্গী-সঙ্গিনীর কাছে কি চান।

গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, পুরুষরা সঙ্গিনী হিসেবে একজন তন্বীর প্রতি খুব বেশি আকৃষ্ট থাকেন। অংশগ্রহণকারী পুরুষদের ৮০ শতাংশ এমন সঙ্গিনীর স্বপ্ন দেখেন। তবে নারীদের ৫৯ শতাংশ মনে করেন, তন্বীদেহ একটা গুণমাত্র।

অন্যদিকে, নারীদের ৯৭ শতাংশ জানান, সঙ্গী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে তার স্থিতিশীল উপার্জনকেই বেশি গুরুত্ব দেন তারা। পুরুষদের ৭৪ শতাংশ অর্থনৈতিক অবস্থাকে গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন।

গবেষণায় আরো দেখা যায়, যে সকল নারী এবং পুরুষের মাঝে নিজের দৈহিক সৌন্দর্য নিয়ে সন্তুষ্টি কাজ করে, তাদের এই তুষ্টি আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্বের সঙ্গী-সঙ্গিনী বাছাইয়ে বেশ প্রভাব ফেলে।

একজন মানুষ তার পার্টনার হিসেবে কেমন মানুষ চান, তা নির্ভর করে তারা নিজেরা কেমন তার ওপর। নারীদের কাছে একজন আদর্শ পুরুষ বলতে অর্থনৈতিকভাবে স্থিতিশিলতা সর্বাধিক গুরুত্ব পেয়েছে। আর নারীদের ক্ষেত্রে দৈহিক সৌন্দর্য এবং তন্বী দেহের নারীরাই এগিয়ে।

গবেষণায় আরো বলা হয়েছে, বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে তাদের আকর্ষণ ক্রমশ হ্রাস পেতে থাকে। সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*